দোকানের গয়না দেখায় বাংলাদেশীকে কটাক্ষ, অতঃপর…

0
Loading...

সংসারের অর্থের চাকা ঘুরাতে লাখো বাংলাদেশীর মতো সৌদি প্রবাসী হয়েছেন নাজের আল-ইসলাম আবদুল করিম। রাজধানী রিয়াদে পরিচ্ছন্নতা কর্মীর কাজ করেন ৬৫ বছর বয়সী এই প্রবাসী।
আবদুল করিম যে অর্থ পান, তা দিয়ে কোনো রকম সংসার চলে। হয়তো স্ত্রী-কন্যাদের কথা মনে করে গয়নার দোকানের চকচকে অলঙ্কারগুলো তাকে টানতো। আর্থিক অস্বচ্ছলতার মধ্যেও সেটা চেপে রাখতে পারেননি তিনি।

একদিন খেয়ালবশতঃ একটি গয়নার দোকানের জানালা দিয়ে অলঙ্কার দেখছিলেন আবদুল করিম। আর সেই ছবি তুলে ইনস্টাগ্রামে ছড়িয়ে দেন এক ব্যক্তি। আর তাতে ওই বাংলাদেশীকে কটাক্ষ করে লেখা ছিল, ‘এই লোকটি তো কেবল ময়লাই দেখতে পারার কথা!’

Loading...

এই কটাক্ষ মেনে নিতে পারেননি আবদুল্লাহ আল-কাহতানি নামের এক ব্যবসায়ী। তিনি তার টুইটারে ‘মানবতার’ খাতিরে ওই পরিচ্ছন্নতা কর্মীর খোঁজ দিতে টুইটার ব্যবহারকারীদের প্রতি আহ্বান জানান।

আবদুল্লাহার এই আহ্বানে ব্যাপক সাড়া মিলে। তার ওই টুইট সাড়ে ৬ হাজারের বেশি শেয়ার হয়। শেষ পর্যন্ত আবদুল করিমকে খুঁজে বের করা সম্ভব হয়।

আবদুল্লাহ জানান, আবদুল করিমকে সাহায্য করতে বহু লোক এগিয়ে আসে। কেউ চালের বস্তা নিয়ে, কেউ আবার মধু নিয়ে তার সাহায্যে এগিয়ে আসে। আবদুল করিমকে বাড়িতে যাওয়া-আসার বিমান টিকেট, দুটি মোবাইলফোন- একটি আইফোন-৭ এবং একটি স্যামসাং গ্যালাক্সি দেয়া হয়েছে। এখনও তাকে অর্থ সহায়তা দেয়া হচ্ছে।

সৌদি স্পোর্টস চ্যানেলের একজন নির্বাহী একটি ভিডিওর স্ন্যাপশট পোস্ট করেছেন। এতে দেখা যাচ্ছে- আবদুল করিম সোনার গয়নার সেট পছন্দ করছেন। পরে সেই উপহার হাতে নিয়ে তোলা ছবিও পোস্ট করা হয়েছে।

মাসে প্রায় ১৫ হাজার টাকা বেতনে কাজ করেন আবদুল করিম। গয়না দেখার সময় তোলা ছবির বিষয়টি জানতেন না বলে তিনি জানান।

উপহারের জন্য সবাইকে ধন্যবাদ জানিয়ে সিএনএন-কে এই বাংলাদেশী বলেন, ‘আমি শহরে আমার চাকরি হিসেবে পরিচ্ছন্নতার কাজ করছিলাম এবং কাজ করতে করতেই ওই গয়নার দোকানে সামনে দাঁড়াই।’

Loading...

নিয়মিত আপডেট পেতে লাইক দিয়ে সাথে থাকুন!
[X]
Loading...